সাংস্কৃতিক মানবিকতায় আত্মিক সহযোগিতায় পারাদর্শী হাটহাজারী মেখল উদয়ন সংঘ

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি অঞ্জন লাল মহাজন

চট্টগ্রাম হাটহাজারী মেখল উদয়ন সংঘের উদ্যোগে মানব সেবায় অনুপ্রেরণা। মেখল উদয়ন সংঘের প্রতিটা সদস্যবৃন্দ ধর্মীয় ও মানবিক কাজে খুব পারদর্শী। মানবিক কাজে সভাপতিত্ব করেন ইঞ্জিনিয়ার অশোক কুমার চৌধুরী।,সঞ্চালনায় বিশ্বজিৎ বল সাধারণ সম্পাদক হিল্লোল সেন উজ্জ্বল যখনই গ্রামে কোন ভালো অনুষ্ঠান বা মানবিক কাজ হয় সবসময়ই মেখল উদয়ন সংঘ পাশে থাকে উক্ত এলাকায় কারো বিপদ হলে পাশে থাকে বা কেউ অসুস্থ হলে আত্মিক- মানসিক সব দিয়ে পাশে থাকে। এইটা একমাত্র বড় ভাই পিতামাতা ও সিনিয়র রা পথ দেখায় বলে ছোটরাও ভালো কাজে নিজেকে জর্জরিত ও যুক্ত করতে পারেন।

এবার উৎসাহ দিয়ে মানবিক কাজে প্রেরণা যোগালেন উক্ত ক্লাবের উপদেষ্টা মিলন চৌধুরী এটম। উপদেষ্টা বলেন একটা কাজ সেটা যেকোনো ভালো কাজ হতে পারে যখন একটা মানুষ কাজে লিপিবদ্ধ হয় উৎসাহ উদ্দীপনা হচ্ছে কাজের অভিভাবক এবং এককথায় কাজের প্রাণ। যখনই কেউ কোন মানবিক কাজে সামাজিক সাংস্কৃতিক কাজে আসবে তাকে অবশ্যই উৎসাহ জোগাবে সে তুমি একা কর বা কয়েকজনে মিলে কর উৎসাহ অবশ্যই যোগাবে পৃথিবীতে প্রত্যেকটা কাজের প্রাণ হচ্ছে উৎসাহ এবং উদ্দীপনা এগুলা না থাকলে তো ভালো কাজে নিজেকে জড়াবে না। প্রত্যেকটা সংগঠনের এই এমনভাবে এগিয়ে যাওয়া উচিত প্রত্যেকটা পিতা মাতাই এমনভাবে সন্তানকে মানব সেবায় বিলিয়ে দেওয়া উচিত পৃথিবীতে যতগুলো খারাপ কাজ হয় ওই খারাপ কাজে খুব উৎসাহ যোগায় বলে খারাপ কাজটা বেশি করে হয়। তা আমরা যদি প্রতিটা কাজে খারাপ কাজের চাইতে বেশি করে। ভালো কাজে উৎসাহ যোগায় খারাপটা আস্তে আস্তে কমে যাবে।

ভালো কাজের প্রতিষ্ঠিত হবে অন্যের ভালো হবে আবার নিজের ভালো হবে। শ্রীশ্রী ঠাকুর বলেছেন অন্যের মঙ্গল কামনা নিছ মঙ্গলের প্রসূতি।ভাবেন অন্যের মঙ্গল কামনা করলে তাহলে আপনার ভালো কিছু হবে। মানবিক কাজের সময় উপস্থিত ছিলেন উক্ত ক্লাবের অন্যতম সদস্য পিকলু দে, অমিত বিশ্বাস, সজীব চৌধুরী, রানা কর্মকার, এবং ক্লাবের প্রত্যেকটা সদস্য বৃন্দ।

Leave a Reply