যশোরের ঝিকরগাছার ৪০ মণ ওজনের “বাহাদুর” দাম ২৫ লাখ টাকা

যশোর প্রতিনিধিঃ


যশোরের ঝিকরগাছায় ৪০ মণ ওজনের উন্নত জাতের একটি গরু পালন করেছেন আমিনুর রহমান। দাম হাঁকা হয়েছে ২৫ লাখ টাকা। খাবার, দৈহিক গঠন, ওজন ও শান্ত স্বভাবের জন্য নাম তার ‘বাহাদুর’। নিজ বাড়িতে প্রাকৃতিক ঘাস, ধানের খড়, খৈল, কুড়া, ভুষি, ভুট্টা ও ছোলা খাইয়ে তা বড় করেছেন। জেলা শহর থেকে ঝিকরগাছা উপজেলার শংকরপুর ইউনিয়নের নায়ড়া গ্রামের মৃত আবুল হোসেনের ছেলে আমিনুর রহমান। গরুটির ১০ ফিট দৈর্ঘ্য ও ৫ ফিট উচ্চতার ষাঁড়টির নাম দেওয়া হয়েছে ‘বাহাদুর’। এমন বড় আকারে গরু দেখতে প্রতিদিন বিভিন্ন এলাকার মানুষ ভিড় জমাচ্ছে আমিনুর রহমনের বাড়িতে। তবে ক্রেতারা দরদাম করে কিনতে পারবেন। দুই বছর আগে নিজ বাড়ীতে জন্ম নেওয়া গরুটি নিজের সন্তানের মত লালন-পালন করেন আমিনুর রহমান।

জানা গেছে, ছোট থেকেই গরু পালনের শখ ছিল আমিনুর রহমানের। এরই ধারাবাহিকতায় ২বছর আগে বাড়িতে তার ফ্রিজিয়ান জাতের গাভী থেকে একটি বাছুর জন্ম নেয়। অন্যান্য বাছুরের থেকে আকার-আকৃতিতে বড় ও শান্ত স্বভাবের হওয়ায় তাকে ঘিরে বিশেষ পরিকল্পনা করেন তিনি। লালন-পালন করছেন নিজের সন্তানের মত ২ বছর ধরে। কোরবানীর ঈদকে সামনে রেখে তার পোষা গরু ‘বাহাদুর’কে বিক্রী করার চিন্তা করছেন। দাম ভালো পেলে বিক্রি করে দেবেন তার পোষা ‘বাহাদুর কে।

খামারি আমিনুর আরও বলেন, ‘পরিবারের সন্তানের মতোই যত্নে পালন করি এদের। ষাঁড়টিকে দুই বছর ধরে নেপিয়ার ঘাস, খড়, ছোলা, ধানের কুঁড়া ও ভুসি খাওয়ায়ে প্রাকৃতিক উপায়ে বড় করেছি। কোনো রেডিফিট খাওয়াইনি। মোটাতাজাকরণের কৃত্রিম কোনো পদ্ধতি বা হরমোনাল ইনজেকশন প্রয়োগ করিনি। স্থানীয় ব্যাপারীরা ১০ লাখ টাকা দাম বলে গেছেন। আমি দাম চেয়েছি ১৪ লাখ টাকা।’

উপজেলার শংকরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বাবু গোবিন্দ চ্যাটার্জি বলেন, ‘শুনেছি আমিনুরের গরুটি এই অঞ্চলের মধ্যে সবচেয়ে বড় গরু। আমিনুর একজন ভালো গরুর খামারি।’

Leave a Reply