পাটকেলঘাটা খলিষখালি ইউনিয়নের কাশিয়াডাগা ডাকাত দলের সদস্য সেলিম রেজা সুরক্ষিত অবস্থায়

সাতক্ষীরা জেলা প্রতিনিধিঃ

সাতক্ষীরা জেলা তালা উপজেলার পাটকেলঘাটা থানার খলিষখালি ইউনিয়নের কাশিয়াডাগা গ্রামের ঘরজামাই সেলিম রেজা ও ওরফে বুলু চোর ( পিতা আব্দুল ওহাব) ডাকাত দলের অন্যতম সদস্য সুরক্ষিত অবস্থায় এই নিয়ে এলাকায় আলোচনার ঝড় উঠেছেন।


এ ব্যাপারে এলাকাবাসী অনেকেই জানান এই সেলিম রেজা দেশের বাড়ি সাতক্ষীরা জেলা শ্যামনগর থানার বাসিন্দার কিন্তু তার এলাকায় সে জলদশ্য ডাকাত বাহিনীর সাথে সংযুক্ত থাকায় এলাকাবাসী তাকে সেখান থেকে বের করে দিয়েছেন সেখান থেকে এসে সাতক্ষীরা জেলার তালা উপজেলার পাটকেলঘাটা থানার খলিশখালী ইউনিয়নের কাশিয়াডাঙ্গা গ্রামে বিয়ে করেন তিনি সেখান থেকে শুরু হয় তার প্রতারণা ও বিভিন্ন ডাকাত চোরদের সাথে চলাফেরা। আমরা এলাকাবাসী দেখি বিভিন্ন সময় বিভিন্ন এলাকা থেকে এই সেলিম রেজা ওরফে বুলু চোর লোকজন নিয়ে আসেন তারা দু একদিন থেকে আবার চলে যায়। সেলিম রেজার এলাকার বাঁশি আরো জানান সেলিম রেজা কিছুদিন আগেও একজন হিন্দু মহিলাকেও পাচারের চেষ্টা চালায় সেখান থেকেও সে টাকার বিনিময়ে ছাড় পেয়ে যায়।

আরো বলেন তার নেই কোন আয়এর উৎস কিন্তু করেছেন কোটি টাকার বাড়ি কিনেছেন কোটি টাকার জমি আমরা এলাকাবাসী এত পরিচ্ছন্ন করেই করতে পারিনা আর সে কোন ব্যবসা বাণিজ্য না করেই কোটি টাকার মালিক হয় কিভাবে এটাই আমরা ভেবে পাইনা তাছাড়া সে একজন ডাকাত দলের সদস্য চুরি মামলা হত্যা মামলা সহ বিভিন্ন মামলা থাকার পরেও যেখানে বারবার ডাকাতি চুরি হচ্ছে সে কিভাবে সুরক্ষিত অবস্থায় থাকে আমরা এলাকাবাসী এর বিচার চাই।

এ ব্যাপারে খলিষখালি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোল্লা সাব্বির হোসেন এর কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান ডাকাত দলের সাথে জড়িত বলে আমরা জানি তাছাড়া তার বিরুদ্ধে রয়েছে একদিক প্রতারণার মামলা ও একজন কৃষককে হত্যার মামলা ও আছে তাছাড়া সে একজন পাচারকারী বলে আমরা প্রমান পেয়েছি।

এ ব্যাপারে সেলিম রেজার সাথে যোগাযোগ করলেই তিনি ডাকাতি করার কথা স্বীকার করে বলেন হ্যাঁ করি তাই কি হয়েছে বলে ফোনটা কেটে দেয়।

এব্যাপারে পাটকেলঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি বিপ্লব কুমার নাথের সাথে যোগাযোগ এর চেষ্টা করলেই ফোনটি রিসিভ না করে কেটে দেন।

Leave a Reply